ব্রেন ওয়াশড করা মুসলিম দল…..যারা গণতন্ত্রের ল্যাজ ধরে শরীয়াহ কায়েম করতে চাই।

আইডিওলজীকে অস্ত্রের মাধ্যমে ধ্বংস করা যায় না। একে তাত্ত্বিকভাবে প্রভাবিত করে ধ্বংস করতে হয়। যাকে বলে ব্রেনওয়াশড করা, অর্থাৎ কোন মানুষের আদর্শকে ধীরে ধীরে বিকৃত করতে করতে সেই প্রকৃত পথ থেকে ফিরিয়ে নিয়ে আসা। এটি সবচেয়ে ভালো বুঝেছে আজকের বর্হিবিশ্ব মোড়লরা।


মুহম্মদ (সঃ) এর আদর্শধারী’দেরকে তারা অস্ত্রের মাধ্যমে পরাজিত করতে পারবে না জেনে তারা তাত্বিকভাবে প্রস্তুত হলো ব্রেনওয়াশড করে পরাজিত করার জন্য। মনস্তাস্ত্বি যুদ্ধের উদ্দেশ্যে তারা তৈরি করল “র‌্যান্ড” নামে একটা সংস্থার। “র‌্যান্ড” হলো একটি অলাভজনক গবেষণাধর্মী প্রতিষ্ঠান যার রয়েছে ১৬ শত কর্মচারীর এক বিশাল কর্মী বাহিনী। http://www.rand.org এই সংস্থাটি ইউএস এর প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়কে বিভিন্ন বিষয়ের উপর গবেষণাধর্মী রিপোর্ট সরবরাহ করে থাকে। আলোচ্য মনস্তাত্বিক যুদ্ধের সাথে এই সংস্থার গভীর সম্পর্ক রয়েছে এবং তারা এই্ বিষয়ের উপর একাধিক নিবন্ধও প্রকাশ করেছে। “সিভিল ডেমোক্রেটিক ইসলাম” নামে নিবন্ধে তারা ইসলামকে বিকৃত করার জন্য প্রয়োজনী স্টেপ গুলো বর্ণনা করেছে। রিপোর্ট’টির ইবুক : Click This Link
.
ইউএস নিউজ এন্ড ওয়াল্ড রিপোর্টে “র‌্যান্ড” কর্তৃক উল্লেখ করা হয়েছে- আমাদের একান্ত ইচ্ছে হলো যে আমরা শুধু মুসলিম সোসাইটিকে প্রভাবিত করতে পেলেই সন্তুষ্ট নয়, আমরা তাদের ধর্মকেই পরিবর্তন করে ফেলেতে চাই। অপর স্থানে উল্লেখ করেছে – “আমরা ইসলামকে বদলে ফেলতে চাই। এর পরের নিবন্ধনে আসে – ওয়াশিংটন গোপনে কমপক্ষে দুই ডজন দেশে অর্থ সাহায্য দিয়ে যাচ্ছে। (তাদের প্রণীত) মডারেট ইসলামকে জনপ্রিয় করার উদ্দেশ্যে রেডিও টেলিভিশনে ইসলামী অনুষ্ঠান প্রচার, মুসলিম স্কুলে বিভিন্ন কোর্স চালু, মুসলিম বুদ্ধিজীবিদের ক্রয়, ইসলামী স্কুল প্রতিষ্ঠা ইত্যাদি কর্মকান্ডের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রিয় সরকার অর্থ সাহায্য দিয়ে যাচ্ছে।”
.
তারা অনেকাংশে সার্থক। তারা এক শ্রেণীর মুসলিম তৈরি করতে পেরেছে। র‌্যান্ডের সংজ্ঞায়িত মডারেট ইসলামের মধ্যে আছে গণতন্ত্রকে সমর্থন, ধর্মনিরপেক্ষতা, শরীয়াহ আইনের অপ্রয়োজনীয়তা, জিহাদ- কিতালের মত ইস্যুগুলোতে শিথিলতা, আর সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্য, মুজাহিদীনদের তাচ্ছিল্য করা, তাদের বিপক্ষে বলা এবং জঙ্গী বলে কুৎসা তৈরি করা। এই ইসলামের দা’ঈরা কুফফারদের শিখিয়ে দেওয়া ইসলাম প্রচার করবে। ইমাম আওলাকি এদের বলেছেন র‌্যান্ড মুসলিম। কারণ মডারেট মুসলিমের সংজ্ঞাটা নির্ধারণ করেছিল ইউ এস ফোর্সের থিঙ্ক ট্যাঙ্ক (RAND) আর পেন্টাগনের প্রকাশিত প্রবন্ধ।
.
আজকে আমরা দেখি পপুলার ইসলামের ঝাণ্ডাবর্দারদের। কেউ মুজাহিদীনদের বলে অশিক্ষিত, কেউ বলে ইসলামী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা ফ্যান্টাসি, কেউ বলে পশ্চিমাদের অনুসরণ করেই মুসলিমদের উন্নত হতে হবে, কেউ বলে জিহাদের আয়াতগুলো ১৪০০ বছর আগের জন্য, কেউ বলে গণতন্ত্র আর শরীয়াহ’র ভেতর পার্থক্য নেই। আজকাল রাজনৈতিক নেতাদের কতাবার্তা শুনে মনে হচ্ছে তারা যেন ইসলামিক স্টাডিজে সদ্য স্নাতোকত্তর ডিগ্রী লাভ করেছেন যা তাদেরকে উদ্বুদ্ধ করছে ইসলামের আসল চরিত্র বৈশিষ্ট্যের উপর জনগণকে বক্তৃত্বা দিয়ে শোনাতে।

******************************************
মোটা দাগে পৃথিবীর আ’লিমরা দুইটি দলে বিভক্ত। একটি দল এমনভাবে দুনিয়া থেকে বিদায় নিতে চায় যেন তাঁরা আল্লাহ্’র ওপর এবং আল্লাহ তাঁদের ওপর সন্তুষ্ট। আরেকটি দল দুনিয়ায় এমনভাবে বেঁচে থাকতে চায় যেন তারা কাফিরদের ওপর এবং কাফিররা তাদের ওপর সন্তুষ্ট। দল দুটি সমান না। কস্মিনকালেও না।

[সংগ্রহিত]

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s